1. jitsolution24@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০২:৪৭ পূর্বাহ্ন

২০২১-২২অর্থবছরে উন্নয়ন বরাদ্দ সোয়া দুইলাখ কোটি টাকা

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৭ মে, ২০২১
  • ২৩৪ Time View

করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও বড় উন্নয়ন পরিকল্পনা হাতে নিচ্ছে সরকার। যার সম্ভাব্য আকার ২লাখ ২৫ হাজার ৩২৪ কোটি টাকা। উন্নয়ন বাজেটে গুরুত্ব পাচ্ছে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রন ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা। তবে চলমান মেগা প্রকল্পেও বরাদ্দ নিশ্চিত করবে সরকার। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) চুড়ান্ত অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে মঙ্গলবার (১৮ মে)।

চলছে মহামারী করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। নানা ক্ষেত্রে কড়াকড়ি এবং বিধি নিষেধ আরোপ করেছে সরকার। তবে নিয়ন্ত্রণের মধ্যেও থেমে নেই উন্নয়ন কাজ। করোনা ভাইরাসকে সঙ্গী করেই উন্নয়ন কাজ চালিয়ে যেতে চায় সরকার। তাই আসছে ২০২১-২২ অর্থবছরে মুল বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আকার ধরা হয়েছে ২লাখ ২৫ হাজার ৩২৪ কোটি টাকা। আর স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলো নিজস্ব অর্থায়নে ১১ হাজার ৪৬৮ কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবে।

স্বাভাবিক ভাবেই এবার গুরুত্ব পাচ্ছে স্বাস্থ্যখাত।

“পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, ভ্যাকসিনের কোনো বিকল্প নেই। ভ্যাকসিন বের করতে হবে।  অর্ডার দিয়ে আনতে হবে। ভ্যাকসিনেশনের কর্মসূচি জোরদার করতে হবে। এই কাজটা সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পাবে।“

শুধু টিকাই নয়। সআর্কি স্বাস্থ্যখাতের সক্ষমতা বাড়াতে উদ্যোগ নেবে সরকার। যার দীর্ঘমেয়াদী সুফল পাবে দেশের মানুষ।

“পরিকল্পনা মন্ত্রী আরও বলেন, আইসিইউ শয্যার সংখ্যা কম ছিল। অক্সিজেন সরবরাহ যন্ত্রপাতির দুর্বলতা ছিল। সাধারণ ভাবেই আমরা ইতিমধ্যে কিছুটা কভার করেছি। আসছে ২০২১-২২ অর্থ বছরের বাজেটে আমাদের সামনে যেসব ঘাটতিগুলো এসেছে সেগুলো পুরণ করার জন্য অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হবে।”

মেগা প্রকল্পের ব্যয় নির্বাহেও কার্পন্য করা হবে না বরং দ্রুত দৃশ্যমান হবে পদ্মা সেতু ও মেট্রোরেলের মত বড় প্রকল্প।

“পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, আমাদের স্বপ্নের কয়েকটা মেগা প্রকল্প সম্পন্ন হওয়ার পথে। এসব প্রকল্পে অর্থ সরবরাহ করতেই হবে। কমিটমেন্ট করাই আছে। এসব প্রকল্প যা বরাদ্দ লাগবে। এরা যা ব্যয় করতে পারবে। আমরা তা দিবো।”

খাত ভিত্তিক বরাদ্দের দিকে তাকালে দেখা যায়, আসছে ২০২১-২২ অর্থবছরে সর্বোচ্চ বরাদ্দ পাচ্ছে পরিবহন ও যোগাযোগখাত। বরাদ্দের পরিান ৬১হাজার ৭২১ কোটি ৪১লাখ টাকা। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বরাদ্দ থাকছে ৪৫ হাজার ৮৬৭ কোটি ৮৪লাখ টাকা, গৃহায়ণ কমিউনিটিখাতে ২৩ হাজার ৭৪৭ কেটি ২১লাখ টাকা, শিক্ষাখাতে বরাদ্দ থাকছে ২৩ হাজার ১৭৭ কোটি ৯৬লাখ টাকা।

তবে সার্বিক উন্নয়নখাতে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হবে মত দিয়েছেন বিশ্লেষকরা।

গবেষনা প্রতিষ্ঠান পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউচের নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর বলেন, ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য প্রকল্প গ্রহন করতে হবে। কারণ এটাই এখন সবচেয়ে জনকল্যামুখী কাজ। এতে সরকারের ১৬ থেকে ১৭ হাজার কোটি টাকা লাগবে। শুধূ টাকা ঢাললেই হবে না। টাকা সৎ ভাবে ম্যানেজ করতে হবে স্বচ্ছতার সঙ্গে। অপব্যবহার যেন না হয়।

উন্নয়ন বরাদ্দের ব্যবহারের ক্ষেত্রে আরও বেশি সর্তক হবে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022