ঢাকা || ২৪ জুন ২০২৪

ব্যাংকে চাকরি পেতে নিজেকে প্রস্তুত করবেন যেভাবে

ব্যাংকে চাকরি পেতে নিজেকে প্রস্তুত করবেন যেভাবে

ব্যাংক ইনফো

প্রকাশিত: ১৩:১৪, ৩০ এপ্রিল ২০২৪

সরকারি হোক আর বেসরকারি, বছর জুড়েই ব্যাংকগুলো নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে থাকে। সে হিসাবে ব্যাংকে চাকরির জন্য নিজের প্রস্তুতি থাকা চাই পাকাপোক্ত। ফলে যখনই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হবে, সঙ্গে সঙ্গে আবেদন করা যাবে নিশ্চিন্তে।

উপরের দু’লাইন পড়তে যতটা সহজ মনে হলো, বাস্তবতা ততটাই কঠিন। তবে কৌশলী প্রস্তুতি ও ধারাবাহিক পড়াশোনার মাধ্যমে চাকরির বাজারে নিজেকে প্রমাণ করা সহজ। বলে রাখা ভালো, সফলতার কোন শর্টকাট রেসিপি নেই। পেশা জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে চাইলে দরকার কঠোর পরিশ্রম, আগ্রহ আর শেখার প্রবল ইচ্ছা।

এরবাইরেও কিছু বিষয় থাকে, যা জানা থাকলে ব্যাংক চাকরির প্রস্তুতিকে আরও সমৃদ্ধ করবে। তেমনই কয়েকটি বিষয় তুলে ধরা হলো-

১.  একাডেমিক পড়াশোনা

সাধারণত ব্যাংকে চাকরির জন্য স্নাতক ডিগ্রির প্রয়োজন হয়। ব্যাংকে পেশা গড়তে চাইলে, সে অনুযায়ী ব্যবসা বা ব্যাংকিং–সংক্রান্ত পড়ালেখায় জোর দেওয়া উচিত। সে ক্ষেত্রে ফিন্যান্স বা অর্থনীতি হতে পারে আপনার একাডেমকি পড়াশোনার মূল বিষয়। 


এছাড়াও ব্যাংক চাকরির জন্য পেশাগত সনদ আপনাকে অন্যসবার চেয়ে এগিয়ে রাখবে। যেমন বিভিন্ন স্বল্পমেয়াদি কোর্স আছে। অনলাইন বা অফলাইনে এসব কোর্স থেকে শিখতে পারেন। তবে এ ক্ষেত্রে ক্যারিয়ার গড়তে চান কি না, সে ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েই এর পেছনে সময় দেওয়া উচিত। মনে রাখবেন, গ্রেড বা সিজিপিএ নিশ্চয়ই গুরুত্বপূর্ণ, কিন্তু পেশার ক্ষেত্রে সফলতার জন্য তার চেয়েও জরুরি হলো আচরণগত দক্ষতা।

ব্যাংকে চাকরি করতে চাইলে নিত্য নতুন বিষয় শেখার মানসিকতা তৈরি করুন। প্রতিষ্ঠানের জন্য একজন ‘সমাধানদাতা’ হয়ে উঠুন। সমস্যা নয়, বরং সমাধান তুলে ধরার মানসিকতা গড়ে তুলুন। সাহস করে নিজের ভাবনাটা প্রকাশ করতে কখনো দ্বিধা করবেন না। এতে চাকরি পাওয়ার সময় ও চাকরি জীবনে আপনার গুরুত্ব বাড়বে।

২. কিছু দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা

সব ধরনের চাকরির জন্যই নির্দিষ্ট কিছু দক্ষতা, অভিজ্ঞতাসম্পন্ন লোক খোঁজেন নিয়োগদাতারা। নবীন-তরুণ কর্মীদের মধ্যে সাধারণত আচরণগত দক্ষতা, যেমন যোগাযোগ, আত্মবিশ্বাস, শেখার আগ্রহ, চ্যালেঞ্জ নেওয়ার মানসিকতা, কথা বলার দক্ষতা, বিশ্লেষণের দক্ষতা, মানিয়ে নেওয়ার মানসিকতা-এসবই গুরুত্ব পায়। আপনার ইতিবাচক মনোভাব, পরিশ্রম, কাজই আপনাকে এগিয়ে নেবে।

৩. শেখার মানসিকতা

ব্যাংকে চাকরি করতে চাইলে নিত্য নতুন বিষয় শেখার মানসিকতা তৈরি করুন। প্রতিষ্ঠানের জন্য একজন ‘সমাধানদাতা’ হয়ে উঠুন। সমস্যা নয়, বরং সমাধান তুলে ধরার মানসিকতা গড়ে তুলুন। সাহস করে নিজের ভাবনাটা প্রকাশ করতে কখনো দ্বিধা করবেন না। এতে চাকরি পাওয়ার সময় ও চাকরি জীবনে আপনার গুরুত্ব বাড়বে।

৪. সময় ব্যবস্থাপনা

করপোরেট দুনিয়ায় সময় ব্যবস্থাপনার গুরুত্ব বলে শেষ করা যাবে। একটি প্রবাদ আছে, করপোরেটে দ্বিতীয়বার সুযোগের কোন ‘সুযোগ’ নেই। তাই আগেভাগে সময় ব্যবস্থাপনার উপর জোর দিতে হবে। সময়ের কাজ সময়মত শেষ করার অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে। বিশেষ করে যারা ব্যাংক চাকরির জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছেন, তাদের সময় ব্যবস্থপনা সর্ম্পকে ধারনা না থাকলে পরবর্তীতে বিপাকে পড়বেন।

৫. নিজেকে আপডেট রাখুন

তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে নিজেকে আপটেড রাখা এখন ডাল ভাত হয়ে দাঁড়িয়েছে। চাকরিদাতারাও একজন প্রার্থীর মধ্যে এমনটি আশা করেন। তাই আপনার আশপাশে কী ঘটছে, সে সর্ম্পকে নিয়মিত অবগত থাকা এখন সময়ের দাবি। বিশেষ করে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক, প্রযুক্তিগত বিষয়গুলো সর্ম্পকে আপডেট থাকতে হবে।